Home / খেলা-ধুলা / ক্যারিবীয় দ্বীপপুঞ্জে অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ড মহাদ্বৈরথ

ক্যারিবীয় দ্বীপপুঞ্জে অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ড মহাদ্বৈরথ

ডেইলি শেয়ারবাজার ডেস্ক: টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের চলমান আসরে এটাই কি সবচেয়ে বড় দ্বৈরথ? এই প্রশ্নই ঘুরেফিরে আসছে। এটা স্বাভাবিক। ভারত-পাকিস্তান মহারণের আগে আজ মুখোমুখি হচ্ছে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দুই দেশ অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ড। এই ম্যাচ দিয়েই ক্যারিবীয় দ্বীপপুঞ্জে বেজে উঠছে মহাদ্বৈরথের সুর।

বিশ্বকাপের ‘বি’ গ্রুপের ম্যাচে বাংলাদেশ সময় রাত ১১টায় বার্বাডোজের ব্রিজটাউনের কেনিংসটন ওভালে মুখোমুখি হবে অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ড। ইতোমধ্যে বিশ্বকাপের মঞ্চে ১টি করে ম্যাচ শেষ হয়েছে দু’দলের। অস্ট্রেলিয়া জয় পেলেও পয়েন্ট ভাগাভাগি করতে হয়েছে ইংলিশদের। আজ প্রথম জয়ের সন্ধানে নামবে ইংল্যান্ড। অস্ট্রেলিয়ার লক্ষ্য টানা দ্বিতীয় জয় তুলে নেওয়া।

নিজেদের প্রথম ম্যাচে স্কটল্যান্ডের মুখোমুখি হয়েছিলো বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড। আজকের ম্যাচের ভেন্যুতেই অনুষ্ঠিত ম্যাচটি বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয়। এতে ১ পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় জশ বাটলারের দলকে। বিশ্বকাপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে পয়েন্ট হারাতে চায় না গেল আসরের চ্যাম্পিয়নরা। তাই এই ম্যাচকে বেশ গুরুত্ব দিচ্ছে ইংলিশরা।

ইংলিশ ব্যাটার জনি বেয়ারস্টো বলেন, ‘প্রথম ম্যাচে আমরা পয়েন্ট হারিয়েছি। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে পূর্ণ ২ পয়েন্ট চাই আমরা। জয়ের লক্ষ্য নিয়ে আমরা মাঠে নামবো। সহজেই জয় আসবে না। ব্যাটার–বোলারদের সেরা পারফরম্যান্স করতে হবে। প্রথম ম্যাচে বোলারদের পারফরম্যান্স ভালো হয়নি। আশা করছি, অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচে বোলাররা ভালো করবে এবং জয়ে অবদান রাখবে।

স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচে দুই পেসার মার্ক উড ও জোফরা আর্চার ভালো বল করলেও, বেশি রান দিয়েছেন মঈন আলি, ক্রিস জর্ডান ও আদিল রশিদ। ২ ওভার করে বল করে মঈন ১৫, জর্ডান ২৪ ও আদিল দেন ২৬ রান। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বোলাররা ভালো করলে, ব্যাটারদের জন্য কাজটা সহজ হবে বলে মনে করেন বেয়ারস্টো।

‘বোলাররা ভালো করলে, ব্যাটারদের জন্য কাজটা সহজ হবে। প্রথম ম্যাচে বোলাররা বেশি রান দিয়েছে। এজন্য বোলারদের আরও সচেতন হতে হবে এবং ইকোনমি রেটের দিকে নজর দিতে হবে। অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটাররা আক্রমনাত্মক ক্রিকেট খেলে থাকে। তাই এ ম্যাচে বোলারদেরই বড় ভূমিকা রাখতে হবে।’- আরও যোগ করেন বেয়ারস্টো।

এদিকে, ওমানের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপ শুরু করে অস্ট্রেলিয়া। সেই ধারা ধরে রাখতে চান জানিয়ে অজি অলরাউন্ডার মার্কাস স্টয়নিস বলেন, ‘ওমানের বিপক্ষে আমাদের পারফরম্যান্স যথেষ্ট ভালো ছিল। এই ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে চাই। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে জয় পেতে হলে তিন বিভাগেই ভালো করতে হবে। ইংল্যান্ড ভারসাম্যপূর্ণ দল। আশা করছি, দু’দলের মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে।’

টি–টোয়েন্টিতে এখন পর্যন্ত ২৩বার মুখোমুখি হয়েছে অস্ট্রেলিয়া–ইংল্যান্ড। এরমধ্যে অজিদের জয় ১০ ম্যাচে এবং ইংলিশদের জয় ১১ ম্যাচে। দু’টি ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়। বিশ্বকাপে চারবারের দেখায় ইংল্যান্ড ২টিতে ও অস্ট্রেলিয়া ১টিতে জয় পায়। ১টি ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়। ২০০৭ সালে অস্ট্রেলিয়া এবং ২০১০ ও ২০২১ সালের বিশ্বকাপে জয় পেয়েছিলো ইংল্যান্ড। ২০২২ সালে ফলাফল হয়নি।

 

ডেইলি শেয়ারবাজার ডটকম/এম আর.

Check Also

ভিনিসিউসকে ছাড়া যেমন হতে পারে ব্রাজিল দল

ডেইলি শেয়ারবাজার ডেস্ক: কোপা আমেরিকার কোয়ার্টার ফাইনালে দলের সেরা তারকা ভিনিসিউস জুনিয়রকে ছাড়াই খেলতে হবে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *